• বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন
  • English

বিজয় একাত্তর হলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বকুল চ্যাম্পিয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২৩

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিজয় একাত্তর হলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আইন বিভাগের মাস্টার্স শ্রেণির শিক্ষার্থী বকুল ইসলাম চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। যৌথভাবে রানার্স-আপ হয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের স্নাতক (সম্মান) ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী বিল্লাল হোসেন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স শ্রেণির শিক্ষার্থী আরিফুজ্জামান এবং ইংরেজী বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী রিয়াদ হোসেন।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান আজ ১৭ জানুয়ারি ২০২৩ মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। খেলা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

বিজয় একাত্তর হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আবদুল বাছিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ্যাথলেটিকস কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূইয়া, প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী, শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. অসীম সরকার এবং কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মো. শাহজাহান আলীসহ বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ, আবাসিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

উদ্বোধন করছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, পড়ালেখার পাশাপাশি ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডসহ সকল ক্ষেত্রে পারদর্শীতা অর্জনের মাধ্যমে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অবদান রাখতে হবে। অধ্যাবসায় ও প্রশিক্ষণসহ নানাবিধ কার্যক্রমে নিয়মিত অংশগ্রহণের মাধ্যমে জ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দক্ষ এবং মানবিক ও অসাম্প্রদায়িক গুণাবলী সমৃদ্ধ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে উঠার জন্য উপাচার্য শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে শিক্ষার্থীদের দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। শরীর ও মনকে সুস্থ রাখতে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার পাশাপাশি নিয়মিত খেলাধুলা ও শরীরচর্চার উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

উল্লেখ্য, বিজয় একাত্তর হলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় মোট ১৭টি ইভেন্টে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও স্বেচ্ছাসেবকরাও অংশ নেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর